মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার ৮ টি সেরা উপায়

মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার ৮ টি সেরা উপায়

মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার উপায় কি সেই সম্পর্কে আমাদের মধ্যে অনেকেই জানতে চায়। কিন্তু কিভাবে মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখা যায় সেই সম্পর্কে আমাদের মাঝে অনেকেই না জানার কারনে তারা সঠিক ভাবে মোবাইলের ব্যাটারির যত্ন নিতে পারে না।

তাই আজ আমি আপনাদের মাঝে হাজির হয়েছি, মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার উপায় সম্পর্কে জানানোর জন্য। চলুন বেশি দেরি না করে আপনাদের দেখিয়ে দেই, কিভাবে মোবাইলের যত্ন নিতে হয়। যাতে করে মোবাইলের ব্যাটারি ভালো থাকে।

বর্তমানে সকলের কাছে স্মার্টফোন এমনটা জিনিস যেটি মানুষের দৈনন্দিন জীবনে বিনোদন থেকে শুরু করে কাজে সর্বক্ষেত্রে এটির ব্যবহার চোখে পড়ার মতো। আমরা দৈনন্দিন কাজে কোনো ভাবে মোবাইল ফোনকে অস্বীকার করতে পারি না।

আরও পড়ুন – বাংলা লেখালেখি করে অনলাইন থেকে টাকা আয়

মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার ৮ টি সেরা উপায়

যেহেতু প্রতিদিন বিভিন্ন কাজে আমাদের স্মার্টফোন ব্যবহার করা লাগে তাই স্বাভাবিক ভাবে মোবাইলের উপর অনেক বেশি চাপ পড়ে থাকে। আর মোবাইলের উপর চাপ পড়লে স্বাভাবিক ভাবে ব্যাটারির উপর চাপ পড়বেই। আর সেজন্য মোবাইলের ব্যাটারির আয়ু কমে যাবে এটাই স্বাভাবিক।

আপনার মোবাইল বার বার চার্জ দিতে হয়, মোবাইলের ব্যাটারি কম চলছে এই সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তির উপায় জানানোর জন্য আজ আমি আপনাদের মাঝে হাজির হয়েছি। আমরা আজকের লেখায় আপনাকে খুব সহজে এই সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তির উপায় জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করো।

মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার কয়েকটি উপায়

  • মোবাইল ফোন চার্জ করার সময়ফোনের কভার খুলে ফেলুন
  • মোবাইল ফোনের আসল চার্জারদিয়ে স্মার্টফোন চার্জ করুন
  • ফোনের ব্যাটারি কমপক্ষে 20 শতাংশ চার্জ করা উচিত

স্মার্টফোনের ব্যাটারি লাইফ বাড়ানোরউপায় | Mobile Battery Power:

১. কীবোর্ড ভাইব্রেশন অফ করুনঃ

আমরা অনেক সময় দেখেছি, আমরা যখন মোবাইলের কিবোর্ডে ক্লিক করে কোন কিছু লিখি তখন মোবাইলে একটা কম্পন হয়। এই কম্পন মোবাইলের ভাইব্রেশন থেকে সৃষ্টি হয়। অনেকে এটি ইচ্ছা করে থাকে আবার অনেকে ভুলবশত করে ফেলে। এই ভাইব্রেশন হলে মোবাইলের চার্জ দ্রুত কমে যায়। তাই আপনি যদি আপনার মোবাইলের চার্জ অনেকক্ষণ বাড়াতে চান তাহলে মোবাইল থেকে ভাইব্রেশন অপশনটি বন্ধ করে দিন।

২.অলওয়েজ অন ডিসপ্লে ফিচার কে ডিজেবল করুনঃ

Always On Display ফিচারটি Moments Smartphone এ ডিফল্ট ভাবে Enable থাকে। মোবাইলের ব্যাটারির কার্যক্ষমতা কমিয়ে দেওয়ার জন্য এটি একটি বড় কারন। তাই আপনার যদি অলওয়েজ অন ডিসপ্লে ফিচার দরকার না পড়ে তাহলে এটি বন্ধ করে রাখুন।

৩. অ্যাপের লোকেশন অ্যাক্সেস ফিচার কে কাস্টমাইজ করুন:

Android ও IOS স্মার্টফোনে সবসময় ড্রাগজি থেকে অবস্থান অ্যাক্সেস অনুমোদন করে থাকে। যদি প্রতিটি অ্যাপস বা সফটওয়্যারে এটি চালু করা থাকে তাহলে আপনার মোবাইলের ব্যাটারির চার্জও দ্রুত ফুরিয়ে যাবে।

যদি আপনি আপনার মোবাইলে সব ধরনের অ্যাপস এর লোকেশন দিতে না চান তাহলে এটি বন্ধ করে রাখুন। এতে করে আপনার মোবাইলের ব্যাটারির ব্যাকআপ অনেকদিন বেড়ে যাবে আর মোবাইলের ব্যাটারির আয়ু একটু হলেও বৃদ্ধি পাবে।

৪. অ্যাপ আপডেটঃ

আমাদের স্মার্টফোনে প্রতিনিয়ত কোন না কোন অ্যাপ আপডেট চেয়ে বসে। এই সমস্ত অ্যাপস কে প্রতিনিয়ত আপ-টু-ডেট রাখা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু নানা কারনে আমরা এই অ্যাপকে আপডেট করতে পারি না। অনেক সময় অ্যাপসর আপডেট ফাইল সাইজ বড় হওয়ার কারনে আমাদের মোবাইলে ডেটা কম থাকার কারনে সেটি আপডেট দিতে পারি না।

কিন্তু আপনাকে জানিরে রাখি, এই অ্যাপসগুলো প্রতিনিয়ত আপডেট না দেওয়ার ফলে আপনার মোবাইলের ব্যাটারির অনেক সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। আপনার ব্যাটারির ব্যাকআপ অনেক কমে যেতে পারে। কারন, যে সকল ডেভেলপাররা এই অ্যাপসগুলো অ্যাপডেট দিচ্ছে তারা আমাদের মোবাইলের ব্যাটারির ব্যাকআপের সাথে সংযোগ রেখে আপডেট গুলো দিচ্ছে।

৫. এয়ারপ্লেন মোড অন করুনঃ

এয়ার মুড বা এয়ারপ্লেন মোডে থাকা অবস্থায় আমাদের মোবাইলের ব্যাটারির চার্জ একটু কম খরচ হয়। তাই আপনি যখন রাতে ঘুমাতে যাবেন না তখন আপনার মোবাইলটি এয়ারপ্লেন মোড অন করে রেখে ঘুমাবেন। এতে করে আপনার মোবাইলের ব্যাটারির ব্যাকআপ অনেক বেড়ে যাবে।

৬. ফোন চার্জ করার আগে কভার টি সরিয়ে ফেলুনঃ

আমাদের মাঝে অনেকেই আছেন যারা মোবাইলে অনেক পুরো কভার ব্যবহার করেন। এই পুরো কভারের জন্য আপনার মোবাইলে যখন চার্জার পিন প্রবেশ করানো হয় তখন চার্জার পিনটি ঠিক ভাবে মোবাইলের সাথে কানেক্ট হয় না। ফলে মোবাইলেও চার্জ দ্রুত হয় না। আবার অনেক সময় পুরো কভারের জন্য মোবাইলে চার্জ দেওয়ার সময় মোবাইল বেশ গরম হয়। তাই মোবাইলে চার্জ দেওয়ার সময় অবশ্যই কভার খুলে ফেলার চেষ্টা করুন।

৭. ফোনের আসল চার্জার দিয়ে চার্জ করবেনঃ

আমরা যখন নতুন মোবাইল কিনি তখন মোবাইলের সাথে একটি চার্জার দিয়ে থাকে। এটি আমাদের মোবাইলের জন্য অরিজিনাল চার্জার। সর্বদা এই চার্জার দিয়ে মোবাইল চার্জ দেওয়া উচিত। মোবাইলের অরিজিনাল চার্জার দিয়ে চার্জ না দিলে আমাদের মোবাইলে অনেক ধরনের ব্যাটারির সমস্যা দেখা দিতে পারে। এমনকি একটা সময়ে আমাদের ব্যাটারি ফুলেও যেতে পারে।

৮.20% এর নিচে ব্যাটারি থাকলে ফোনটি চার্জ করুনঃ

আমরা অনেক সময় আমাদের ফোনের ব্যাটারি ৫-১০% না আসা পর্যন্ত মোবাইল চালাতেই থাকি। এটি মোটেও ঠিক না। মোবাইলে ব্যাটারির সর্বদা ২০% এর নিচে এনে ব্যবহার করা ঠিক নয়। তাছাড়া বার-বার মোবাইলের ব্যাটারিও চার্জ দেওয়া ঠিক নয়। এতে করে আপনার মোবাইলের ব্যাটারির আয়ু অনেক কমে যেতে পারে। সবসময় সঠিক নিয়মে ব্যাটারি চার্জ করুন।

পরিশেষেঃ

মোবাইল আমাদের সকলের কাছে অতি মুল্যবান একটি সম্পদ। দৈনন্দিন কাজে আমরা সকলে মোবাইল ব্যবহার করে থাকি। তাই এই মোবাইল কিভাবে রাখলে ভালো থাকবে সেটি আমাদের দেখতে হবে। নিজের মোবাইল নিজেকেই ভালো রাখতে হবে। এমন মানুষিকতা নিয়ে চলা উচিত আমাদের।

You May Also Like

About the Author: banglait24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *