বয়স্ক ভাতা অনলাইন আবেদন করার নিয়ম কি জানুন

বয়স্ক ভাতা অনলাইন আবেদন করার নিয়ম

বয়স্ক ভাতা অনলাইন আবেদন করার নিয়ম কি সেই সম্পর্কে অনেকে জানেন না। তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট। আজকের লেখায় জানিয়ে দিবো, বয়স্ক ভাতা অনলাইনে আবেদন করার নিয়ম, বয়স্ক ভাতার টাকা দেখার নিয়ম নিয়ম কি সেই সব সম্পর্কে। চলুন দেরি না করে অনলাইনে বয়স্ক ভাতার আবেদন কিভাবে করবেন, কি কি লাগবে, আবেদন করার শর্তাবলী ও বিস্তারিত কি জানিয়ে দেই।

বর্তমান সময়ে খুব সহজে ঘরে বসে মোবাইল বা কম্পিউটার থেকে অনলাইনে বয়স্ক ভাতার আবেদন করা যায়। আপনি অনলাইনে বয়স্ক ভাতার আবেদন করার পরে সেটি যাচাই বাছাই করে সরাসরি মোবাইল ব্যাংকিং এ টাকা গ্রহন করতে পারবেন। তাই বলা চলে, অনলাইনে ঘরে বসে বয়স্ক ভাতার আবেদন করা যায়।

বাংলাদেশ সরকার ইতোমধ্যে বয়স্ক ভাতার টাকা গ্রাহকদের মোবাইলে G2P পদ্ধতিতে আবেদন গ্রহন ও যাচাই বাছাইয়ের পরে সরাসরি ভাতা গ্রহীতার মোবাইলে পাঠানোর ব্যবস্থা করে দিয়েছে।

আরও পড়ুন – অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

বয়স্ক ভাতা কি?

বয়স্ক ভাতা হলো সরকারের একটি আর্থিক কর্মসূচি যার মাধ্যমে বয়স্ক, দুস্থ, কর্মহীন ও স্বল্পআয়ের মানুষকে আর্থিকভাবে সাহায্য করা হয়।

সরকারি এই সাহায্য সহযোগিতা পেতে বয়স্ক ব্যক্তির কিছু শর্ত অবশ্যই পুরন করতে হবে। সরকারি অফিসার এই সমস্ত কিছু যাচাই বাছাই করে বয়স্ক ব্যক্তির ভাতা প্রাপ্তি বিষয়টা নিশ্চিত করে থাকে।

বয়স্ক ভাতা কত টাকা দেওয়া হয় ২০২৩

বর্তমান সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে বয়স্ক ভাতা প্রাপ্তি ব্যক্তিদের মাসিক ৫০০ টাকা টাকা প্রদান করা হয়ে থাকে। এই টাকাটা খুবই কম। কিন্তু পরবর্তীতে এই টাকার পরিমাণ বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কারন পূর্বে বয়স্ক ভাতার টাকার পরিমান কম ছিলো। যেটি এখন একটু বাড়ানো হয়েছে। তাই বলা চলে, আগামী ভবিষ্যতে এই ভাতার পরিমাণ বাড়তে পারে।

অর্থ বছরমাসিক ভাতার পরিমাণ
২০০৯-১০২৫০ টাকা
২০১০-১১৩০০ টাকা
২০১৬-১৭৫০০ টাকা
বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম

বয়স্ক ভাতা কত বছর থেকে দেওয়া হয়

বাংলাদেশে বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন করার একটি নির্দিষ্ট বয়স সীমা রয়েছে। যেটি একজন পুরুষের জন্য ৬৫ বছরের বেশি থেকে শুরু হয় ও একজন মহিলার ক্ষেত্রে ৬২ বছর থেকে শুরু হয়।

বয়স্ক ভাতা পাওয়ার জন্য যোগ্যতা ও শর্তাবলী

বয়স্ক ভাতা পেতে হলে কিছু শর্তাবলী অবশ্যই মানতে হবে। নিচে বয়স্ক ভাতা পাওয়ার যোগ্যতা ও শর্তাবলী বর্ননা করা হলো।

১. তাকে অবশ্যই বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
২. নিজ এলাকার বাসিন্দা প্রমান স্বরুপ জাতীয় পরিচয়পত্র থাকতে হবে।
৩. আবেদনকারী নারির ৬২ বছরের উর্দ্ধে ও পুরুষের ৬৫ বছরের উর্দ্ধে বয়স হতে হবে। তবেই তারা বয়স্ক ভাতার আবেদন করতে পারবেন।
৪. আবেদনকারীর বার্ষিক ১০,০০০ টাকার কম আয় হতে হবে।

বয়স্ক ভাতা প্রাপ্তীর ক্ষেত্রে অযোগ্যতা

বয়স্ক ভাতা প্রাপ্তীর ক্ষেত্রে কারা অযোগ্য সেই সম্পর্কে নিচে দেখানো হলো।

১. সরকারি অন্য কোন সুবিধা পেলে।
২. কোন প্রকার সরকারি পেনশন পেলে।
৩. দুঃস্থ মহিলা হিসেবে VGD কার্ড থাকলে।
৪. কোন বেসরকারি সংস্থা বা কোন কোম্পানির থেকে নিয়মিত ভাতা বা অনুদান পেলে।

বয়স্ক ভাতা অনলাইন আবেদন করার নিয়ম | বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম

অনলাইনে বয়স্ক ভাতার আবেদন করার জন্য নিচের ধাপগুলি অনুসরণ করুন।

ধাপ ১ঃ প্রথমে সমাজসেবা অধিদপ্তরে বয়স্ক ভাতার ওয়েবসাইট এই লিংকে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ২ঃ এবার এই লিংক এ ক্লিক করে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে বয়স্ক ভাতার আবেদন ফরম ডাউনলোড করে প্রিন্ট করে নিন।

ধাপ ৩ঃ উপর থেকে যে বয়স্ক ভাতার আবেদন ফরম ডাউনলোড করেছেন সেটি পুরন করে স্থানীয় চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে বা ইউনিয়ন পরিষদে বা পৌরসভায় যেয়ে ফরমটি জমা দিন।

বয়স্ক ভাতার আবেদন আপনি ঘরে বসে খুব সহজে করতে পারবেন। তারজন্য আপনার হাতের মোবাইল অথবা কম্পিউটার দিয়েও করতে পারবেন।

মোবাইল অথবা কম্পিউটার দিয়ে কিভাবে অনলাইনে বয়স্ক ভাতার আবেদন করতে পারবেন সেই সম্পর্কে প্রথমে ভালোভাবে জেনে নিন।

সমাজসেবা অধিদপ্তর বয়স্ক ভাতা আবেদন | বয়স্ক ভাতার অনলাইন রেজিস্ট্রেশন

সমাজসেবা অধিদপ্তর থেকে বয়স্ক ভাতার অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম নিচে দেখানো হলো,

১. প্রথমে http://mis.bhata.gov.bd/onlineApplication এই লিংকে ক্লিক করে নিচে দেখানো ছবির মত জায়গায় আসতে হবে।

বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম
বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম

২. এবার নির্বাচন করুন বক্সে ক্লিক করুন। তারপর বয়স্ক ভাতা অপশনটি সিলেক্ট করুন।

৩. এবার যার নামে আবেদন করবেন তার জাতীয় পরিচয়পত্র নাম্বার ও তার নিচের ঘরে তার জন্ম তারিখটি বসান। তারপর যাচাই করুন ঘরে ক্লিক করুন।

বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম
বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম

৪. যাচাই করুন বাটনে ক্লিক করার পরে আপনার সামনে যার নামে বয়স্ক ভাতার আবেদন করতে চাইছেন তার সমস্ত তথ্য দেখাবে। তারপরও কোথাও সমস্যা মনে হলে সেটি নিজে ঠিক করে নিন।

বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম
বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম

৫. এবার আবেদনকারীর কিছু তথ্য দেওয়া হবে। যেমন,

  • বৈবাহিক অবস্থা
  • শিক্ষাগত যোগ্যতা
  • পরিবারের সদস্য সংখ্যা (পুরুষ, মহিলা ও হিজড়া)
  • পেশা
  • বার্ষিক আয়
  • স্বাস্থ্যগত বা কর্মক্ষমতা সংক্রান্ত তথ্য
  • সরকারি বা বেসরকারি আর্থিক সুবিধার তথ্য
  • বাসস্থান তথ্য
  • ভূমির পরিমাণ
বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম
বয়স্ক ভাতা আবেদন করার নিয়ম

ধাপ ৬ঃ এবার আপনাকে যোগাযোগের তথ্য দিতে হবে। যেমন, আবেদনকারির ঠিকানা, মোবাইল নাম্বার, মোবাইল নাম্বার টি কার সেটিও সিলেক্ট করতে হবে। তারপর আপনার মেইল থাকলে মেইল দিন।

ধাপ ৭ঃ এবার প্রথম থেকে সকল তথ্যগুলো একবার করে দেখে নিন। সবকিছু ঠিক থাকলে সংরক্ষণ বাটনে ক্লিক করুন।

মনে রাখবেন, একবার সংরক্ষণ বাটনে ক্লিক করলে আর পরিবর্তন করার কোন সুযোগ থাকবে না।

ধাপ ৮ঃ আবেদনটি সংরক্ষণ বা সাবমিট করা হয়ে গেলে আপনি সেটি ডাউনলোড করার অপশন পাবেন। বয়স্ক ভাতার আবেদনপত্রটি PDF আকারে সেভ করে কম্পিউটার দোকান থেকে প্রিন্ট আউট করে নিন।

উপরে আমরা যে ৮ টি ধাপের কথা বলেছি এই ধাপগুলো অনুসরণ করে খুব সহজে বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

বয়স্ক ভাতা আবেদনের শেষ তারিখ

সমাজ সেবা অধিদপ্তর থেকে বয়স্ক ভাতা আবেদনের শেষ তারিখ জানিয়ে দেওয়া হয়। প্রতিবছর নতুন বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন করা যায়। আর অনলাইনে বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন করার নিয়ম তো খুবই সহজ। সেটি জেনে গেলেন।

বয়স্ক ভাতা মোবাইল ব্যাংকিং

করোনার সময় থেকে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক যেকোন সরকারি অনুদান মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে প্রদার করা হয়ে থাকে। এতে করে ভাতা গ্রহীতাদের যেমন ভোগান্তি কমেছে তেমন অনেক দালাল ও অসৎ ব্যক্তিদের হাত থেকে অনেকে মুক্তি পেতে পেরেছে।

অনলাইনে বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন করার পরে সেটি নিজ ইউনিয়ন পরিষদে অথবা সিটি করপোরেশনে জমা দেওয়ার পরে যাচাই বাছাইয়ের পরে যদি তিনি বয়স্ক ভাতায় নির্বাচিত হন তাহলে তার এই বয়স্ক ভাতা টাকা হাতে পাওয়ার জন্য একটা মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট প্রয়োজন হবে।

বয়স্ক ভাতার টাকা পাওয়ার জন্য তার বর্তমানে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্টের প্রয়োজন পড়ে।

শেষ কথাঃ

যে কেও বয়স্ক ভাতার জন্য যখন তখন আবেদন করতে পারেন না। সাধারনত বছরের শুরুতে বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন করার সময় আসে। তাই বছরের প্রথম দিকে খেয়াল রাখুন কখন অনলাইনে বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন করতে নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

You May Also Like

About the Author: banglait24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *