ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে গেলে করনীয় কি জানুন | গাড়ির কাগজ হারিয়ে গেলে করনীয়

ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে গেলে করনীয়

ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে গেলে করনীয় কিঃ ড্রাইভিং লাইসেন্স বা গাড়ির কাগজ প্রতিটি গাড়ি চালকের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট। একজন পেশাদার অথবা অপেশাদার ড্রাইভারের গাড়ির ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকা অবশ্যই বাধ্যতামুলক। যিনি গাড়ি চালান তাকে অবশ্যই গাড়ি চালানোর জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্স নিতে হবে। মনে রাখবেন, কোন গাড়ি চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকা অনেক বড় গুরুতর আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

ড্রাইভিং লাইসেন্স কি

আপনি যদি গাড়ি চালাতে চান তাহলে তাহলে আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি জিনিস হচ্ছে গাড়ি চালানোর জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্স। আপনি ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালালে সেটি আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হবে। তাই একজন ব্যক্তি গাড়ি কেনার সাথে সাথে তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ কাজ হচ্ছে ড্রাইভিং লাইসেন্স করানো। ড্রাইভিং লাইসেন্স হচ্ছে এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ দলিল যেটিতে আপনার যাবতীয় তথ্য দেওয়া থাকে। যা একজন ড্রাইভারের গাড়ি চালানোর বৈধতা দিয়ে থাকে।

গাড়ির পেপার করতে প্রথমে আপনাকে BRTA কর্তৃক নির্দিষ্ট নিয়ম নীতিমালা গুলো রয়েছে সেইগুলা পালন করে ড্রাইভিং লাইসেন্সর জন্য আবেদন করতে হয়। সবকিছু ঠিক থাকলে আপনাকে গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন – সেরা অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট

ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে গেলে করনীয়

গাড়ি চালানোর প্রমানপত্র বা ড্রাইভিং লাইসেন্স একজন গাড়ি চালকের কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এই লাইসেন্স ছাড়া কোন গাড়ি চালক গাড়ি চালানোর অনুমতি পান না।

আর তাই কোন কারনে এটি হারিয়ে গেলে অনেকে অনেক বেশি চিন্তায় পড়ে যান। তবে এই নিয়ে চিন্তার কোন কারন নেই। আপনি খুব সহজে ঘরে বসে ড্রাইভিং লাইসেন্সর জন্য আবেদন করতে পারবেন। গাড়ির লাইসেন্স হারিয়ে গেলে করনীয় কি সেই সম্পর্কে যারা মোটেও জানেন না তাদের জন্য আজকের এই পোস্টটি। চলুন ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে গেলে কি করতে হবে সেই সম্পর্কে নিচে দেখিয়ে দেই।

কিভাবে ড্রাইভিং লাইসেন্স হাতে পাবেন

১. আপনার নিকটস্থ থানায় জিডি (GD) করার মাধ্যমে।

২. যে ড্রাইভিং লাইসেন্সটি হারিয়ে গেছে সেই লাইসেন্স এর বিরুদ্ধে কোন মামলা আছে কিনা তার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সংগ্রহ করা।

৩. যে এলাকা থেকে মিসিং ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন করা হয়েছিলো সেই এলাকায় আবেদন জমা দেওয়া।

৪. ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য BRTA এর অফিসে নির্ধারিত ফি জমা দেওয়া।

ডুপ্লিকেট ড্রাইভিং লাইসেন্স এর জন্য আবেদন

ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে গেলে অথবা তথ্য কোন ভাবে মুছে গেলে ড্রাইভারকে ডুপ্লিকেট ড্রাইভিং লাইসেন্সর জন্য আবেদন করতে হয়।

সরাসরি অথবা অনলাইন দুই ভাবে ডুপ্লিকেট ড্রাইভিং এর জন্য লাইসেন্স আবেদন করা যায়।

ডুপ্লিকেট ড্রাইভিং লাইসেন্স আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

ডুপ্লিকেট ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন কিভাবে করতে হবে ও ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে গেলে ফরম কোনটি ও কি কি কাগজের প্রয়োজন নিচে দেখানো হলো।

১. ডুপ্লিকেট লাইসেন্স আবেদন ফরমে আবেদন।

২. GD কপি ও Police ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।

৩. ডুপ্লিকেট লাইসেন্সের হাই সিকিউরিটির ক্ষেত্রে ৮৭৫ টাকা BRTA নির্দারিত ব্যাংক জমা দানের রশিদ।

৪. নিজের এক কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

ড্রাইভিং লাইসেন্স আবেদন করার নিয়ম | ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম

গাড়ির লাইসেন্স কারার কয়েকটি নিয়ম রয়েছে। নিচে ধাপে ধাপে নিয়মগুলো দেখিয়ে দেওয়া হলো।

ধাপ ১ঃ প্রথমে BRTA এর নিজস্ব ওয়েবসাইট https://bsp.brta.gov.bd এই লিংকে ক্লিক করতে হবে। তারপর একটি ফরম দেখতে পাবেন। ফরমটি পুরন করুন।

ধাপ ২ঃ এবার নির্ধারিত কাগজপত্র গুলো আবেদনপত্রের সাথে যুক্ত করতে হবে ও সেই সাথে আবেদন ফি জমা দিতে হবে।

ধাপ ৩ঃ এবার পূর্বে যেখান থেকে লাইসেন্স করা হয়েছিল সেখানে আবেদনপত্রটি জমা দিতে হবে।

অনলাইনে জমা দেওয়ার সময় BRTA নির্ধারিত অফিসের ওয়েবসাইট ঠিকানায় জমা দিতে হবে।

উপরে সবকিছু ঠিক থাকলে আপনি কবে স্মার্ট কার্ড পাচ্ছেন সেই তারিখ SMS এর মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।

ডুপ্লিকেট ড্রাইভিং লাইসেন্স ফি

ডুপ্লিকেট ড্রাইভিং লাইসেন্স করার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটি নির্দিষ্ট হারে ফি দিতে হবে। যেটি বর্তমান ফি ৮৭৫ টাকা। এই ফি পরিবর্তনশীল। ফি সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তন হতে পারে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালানোর শাস্তি

যারা গাড়ি চালান তাদের অবশ্যই ড্রাইভিং লাইসেন্সের প্রয়োজন রয়েছে। এটি ছাড়া গাড়ি চালালে আপনাকে সর্বোচ্চ ৬ মাসের জেল ও ২৫০০০ টাকা জরিমানা হতে পারে অথবা উভয় দন্ডে শাস্তি হতে পারে।

সর্বশেষ কথাঃ

গাড়ির কাগজপত্র তৈরী করা যেটি আমাদের সকলের জন্য অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি সম্পদ। এটি ছাড়া আমরা গাড়ি চালানোর বৈধতা পাই না। গাড়ি চালানোর বৈধতা পেতে আমাদের সকলের আগে গাড়ি চালানোর জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরী করতে হবে। আর যাদের গাড়ির কাগজ হারিয়ে গেছে তারা উপরের নিয়মগুলো অনুসরন করে পুনরায় গাড়ির কাগজপত্র তৈরী করতে পারেন।

You May Also Like

About the Author: banglait24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *