ডিজিটাল মার্কেটিং কি | ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার সহজ উপায়

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার সহজ উপায়

ডিজিটাল মার্কেটিং কি ও ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার সহজ উপায় কি সেই সম্পর্কে যারা যানেন না, তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট। আজকের লেখায় আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করবো, ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে শিখব, ডিজিটাল মার্কেটিং কি ভাবে করতে হয় সেই সম্পর্কে। আজকের লেখায় আরও থাকছে ডিজিটাল মার্কেটিং কাকে বলে, ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ, ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায় সম্পর্কে। চলুন দেরি না করে শুরু করা যায়।

বর্তমান যুগে আমরা যারা অনলাইনে কোন কাজ করতে চাই বা অনলাইন ইনকাম শুরুর কথা ভাবি তাদের মাথায় প্রথমে আসে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কথা।

কিন্তু আমাদের মাঝে অনেকেই ডিজিটাল মার্কেটিং এর নাম শুনলেও ডিজিটাল মার্কেটিং কি সেটাই এখনও জানি না। তাদের জন্য আজ আমি হাজির হয়েছি। আজ আমি আপনাদের জানিয়ে দিবো, ডিজিটাল মার্কেটিং কত প্রকার, ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায়, ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ কেমন সেই সম্পর্কে ও জানার চেষ্টা করবো।

আরও পড়ুন – বাংলা লেখালেখি করে অনলাইন থেকে টাকা আয়

ডিজিটাল মার্কেটিং কি | ডিজিটাল মার্কেটিং কাকে বলে

আমাদের মাঝে অনেকে জানতে চায় ডিজিটাল মার্কেটিং কি ও ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায় কি সেই সম্পর্কে।

কোন পণ্য বা কোন কিছুকে যখন ডিজিটালি বা ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া ব্যবহার করে প্রচার করা হয় সেটিকে সহজ ভাষায় ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়। যেমন বর্তমানে আমরা facebook বা অন্য কোন সোসাল মিডিয়ায় পণ্য বিক্রি বা সেই পণ্যের বিস্তারিত দেখতে পাই সেটি করা হয় ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে।

পণ্যের ডিজিটাল মার্কেটিং শুধুমাত্র সোশাল মিডিয়ায় নয়, টিভি, রেডিও তেও করা হয়ে থাকে।

আপনি যখন এই মাধ্যম গুলো কাজে লাগিয়ে কোন পণ্যের প্রচার করবেন সেটিকে বলা হয় ডিজিটাল মার্কেটিং।

ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করা হয় | ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার সহজ উপায়

ইতিমধ্যে উপরে আমরা আলোচনা করেছি, ডিজিটাল মার্কেটিং কি, ডিজিটাল মার্কেটিং কাকে বলে সেই সম্পর্কে। এইবার আপনাদের সাথে আলোচনা করবো, ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করতে হয় সেই সম্পর্কে।

যদি আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং করতে চান তাহলে প্রথমে আপনার সামনে কয়েকটি বিষয় চলে আসবে। এই বিষয়গুলো জানার পরে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করতে হয় সেই সম্পর্কে খুব ভালো ভাবে জানতে পারবেন।

বর্তমানে সময়ে আমরা ঘরে বসে বিভিন্ন ধরনের সোসাল মিডিয়া গুলোতে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ করতে পারবো। যেখানে নিজের নতুন নতুন কৌশল অবলম্বন করে খুব সহজে ঘরে বসে নির্দিষ্ট পণ্যের প্রচার করা সম্ভব। তাছাড়া আপনি চাইলে সোশাল মিডিয়ায় পাশাপাশি টেলিভিশন, রেডিও তেও পণ্যের প্রচারনা করতে পারবেন। এই সবকিছু ডিজিটাল মার্কেটিং এর অংশ।

ডিজিটাল মার্কেটিং কত প্রকার ও কি কি

উপরে আমরা এতক্ষণ ধরে আলোচনা করেছি, ডিজিটাল মার্কেটিং কি, ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করতে হয়।

এবার আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং কত প্রকার ও কি কি সেই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

বর্তমান সময়ে আপনি অনেক ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং দেখতে পাবেন। এই ডিজিটাল মার্কেটিং এর মধ্যে প্রকারভেদ ও রয়েছে।

নিচে আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং কত কত প্রকার সেই প্রকারভেদগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

ডিজিটাল মার্কেটিং কত প্রকার | Types of digital marketing in Bengali

আমরা আগেই বলেছি, ডিজিটাল মার্কেটিং এর মধ্যে অনেক ধরনের প্রকারভেদ হয়েছে। আমরা অনেক ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং দেখতে পাই। নিচে আমরা লিস্ট আকারে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রকারভেদ দেখিয়ে দিচ্ছি,

১. সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (SEO)
২. সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং (Pay-Per-Click)
৩. সোশাল মিডিয়া মার্কেটিং
৪. কন্টেন্ট মার্কেটিং
৫. ইমেইল মার্কেটিং
৬. এফিলিয়েট মার্কেটিং
৭. বিপণন অটোমেশন
৮. ভিডিও মার্কেটিং
৯. মোবাইল মার্কেটিং

উপরে আপনারা বেশ কয়েকটি ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রকারভেদ দেখতে পাচ্ছেন। তবে এই আলাদা আলাদা নামের পাশাপাশি এই মার্কেটিং গুলো কিভাবে করতে হবে সেই সম্পর্কে ও আপনাদের জানতে হবে। উপরে যে কয়েকটি ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রকারভেদ দেখতে পাচ্ছেন, এর মধ্যে কোনটি কিভাবে করতে হয় সেই সম্পর্কে পরিষ্কার ধারনা থাকতে হবে। তালে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সপার্ট হয়ে উঠতে পারবেন।

আমরা উপরে দেখা ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রকারভেদ গুলো সম্পর্কে নিচে বিস্তারিত আলোচনা করছি। যাতে আপনি খুব সহজে ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে ধারনা পেতে পারেন।

আরও পড়ুন – বিকাশ নতুন ক্যাশব্যাক অফার

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (SEO)

আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হবে।

কারন সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন হলো এমন একটি মাধ্যম যেটি ডিজিটাল মার্কেটিং করার পথটাকে অনেক সহজ করে দিয়েছে।

এর ফলে আপনি যখন ডিজিটালি মার্কেটিং করতে যাবেন তখন আপনাকে নির্দিষ্ট পণ্যকে মানুষের কাছে পৌছিয়ে দিতে হবে।

কারন বর্তমানে সকলে কোন পণ্য কেনার আগে সেই পণ্যটি কেমন তা জানার জন্য গুগলে সার্চ দিয়ে দেখে নেই। এখন আপনি যদি গুগল সার্চ ইঞ্জিনে খুব ভালোভাবে আপনার পণ্যটি প্রচার করতে পারেন তাহলে খুব ভালোভাবে আপনার পণ্যটি মানুষের কাছে পৌছাবে।

গুগলে যখন ভালোভাবে আপনার পণ্যটি অপটিমাইজেশন করবেন তখন আপনার পণ্যটি সকলের কাছে খুব দ্রুত পৌঁছাতে সাহায্য করবে কিন্তু তার বিনিময়ে কোন টাকা খরচ হচ্ছে না। কত সুন্দর এই বিষয়টি।

Pay Per Click | সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং

পে-পার-ক্লিক এমন একটি বিঞ্জাপন মাধ্যম যেটিতে টাকা খরচ হয়। Par per click এর মাধ্যমে যখন কোন পণ্যের ডিজিটাল মার্কেটিং করা হয় তখন সেটিতে অর্থ ব্যয় করতে হয়।

এই ক্ষেত্রে আপনাকে একটি মাধ্যম ধরতে হবে৷ যেমন, ধরেন আপনি গুগলে কোন একটি পণ্যের বিঞ্জাপন দিবেন। সেই ক্ষেত্রে আপনাকে গুগলে ওই পণ্যটি বিঞ্জাপন দেওয়ার জন্য অর্থ প্রদান করতে হবে। এবং গুগল আপনার অর্থের বিনিময়ে আপনার পণ্যটি মানুষের কাছে পৌছিয়ে দিতে সাহায্য করবে।

শুধুমাত্র গুগল নয়, অন্যান্য জায়গায় পণ্যের বিজ্ঞাপন দিতে হলে আপনাকে অর্থ ব্যয় করতেই হবে।

সোশাল মিডিয়া মার্কেটিং

বর্তমান সময়ের ক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য সোশাল মিডিয়া অনেক বড় একটি অংশ।

এর কারন প্রতিটি মানুষ এখন সময় পার করার জন্য একমাত্র মাধ্যম হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়াকে বেছে নিয়েছে। তাই আপনি যদি কোন পণ্যের বিজ্ঞাপন দিতে চান তাহলে প্রথমেই আপনি সোশাল মিডিয়াকে বেছে নিন। এতে করে খুব সহজে আপনি আপনার টার্গেটেড মানুষের কাছে খুব সহজে পৌঁছাতে পারবেন।

নির্দিষ্ট টার্গেটেড মানুষের কাছে পৌছানোর জন্য সোশাল মিডিয়ার কোন তুলনা হয় না তাই বর্তমানে সকলে পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য সোশাল মিডিয়াকে বেছে নিয়েছে।

কন্টেন্ট রাইটিং | কন্টেন্ট মার্কেটিং

বর্তমান সময়ে ডিজিটাল মার্কেটিং করার অন্যতম প্রকার হলো কন্টেন্ট রাইটিং করা। মুলত এই ধরনের পদ্ধতিতে মার্কেটিং করার সময় আপনাকে অনেক বেশি রিসার্স রাখতে হবে ও এই ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং এ আপনাকে সব থেকে বেশি মুল্য দিতে হবে কন্টেন্ট এর উপর।

অর্থ্যাত, মানুষ যে ধরনের কন্টেন্ট বা যে ধরনের লেখা পড়তে বেশি পছন্দ করে সেই ধরনের কন্টেন্ট লিখতে হবে। এবং সেটি মানুষের কাছে পৌছিয়ে দেওয়ার জন্য একটি ওয়েবসাইট, ইউটিউব বা সোশাল মিডিয়া ব্যবহার করতে হবে।

ধরুন, আপনার টার্গেটেড কাস্টমার সকলে প্রতিদিন সংবাদ পড়তে অনেক পছন্দ করে। তাহলে আপনাকে নিউজ রিলেটেড কন্টেন্ট রাইটিং করতে হবে।

ইমেইল মার্কেটিং | Email Marketing

বর্তমানে ইমেইল মার্কেটিং, ডিজিটাল মার্কেটিং এর বড় একটি মাধ্যম হয়ে দাড়িয়েছে। কারন, সময়ের সাথে সাথে আমাদের প্রতিদিন বিভিন্ন কাজে ইমেইল ব্যবহার করতে হয়। এখন আপনি যদি আপনার পণ্যের ডিজিটাল মার্কেটিং হিসেবে ইমেইলকে বেছে নেন তাহলে ইমেইল ব্যবহারকারিরা তাদের নিজেদের ইমেইলে আপনার পণ্যের বিজ্ঞাপন দেখতে পাবেন।

আপনার সকল পণ্য ইমেইল এর মাধ্যমে আপনার টার্গেটেড মানুষের কাছে পাঠিয়ে দিতে পারেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং

ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম একটি প্রকার হলো এফিলিয়েট মার্কেটিং। এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আপনি খুব সহজে বেশ ভালো টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তার জন্য আপনাকে পণ্য দ্রব্য মানুষের কাছে পৌছাতে হবে। আপনি পণ্য যত বিক্রি করতে পারবেন তত আপনি কমিশন পাবেন।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, আপনি আমাজন এর একটি পণ্য বিক্রি করার কথা ভাবছেন। তখন আপনি নির্দিষ্ট পণ্যটির অ্যাফিলিয়েট লিংক নিয়ে বিক্রি করতে পারলে নির্দিষ্ট একটি কমিশন পাবেন। আর এটিকেই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলে থাকে।

উপরে আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং এর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকার নিয়ে আলোচনা করেছি। ডিজিটাল মার্কেটিং এর অনেক প্রকারভেদ থাকলেও মুলত যে প্রকারগুলো সব থেকে বেশি জনপ্রিয় সেইগুলা নিয়ে উপরে আলোচনা করা হয়েছে। এর বাইরেও অনেকগুলো ডিজিটাল মার্কেটিং করার প্লাটফর্ম রয়েছে যেগুলো আমরা অন্য কোনদিন আলোচনা করবো।

You May Also Like

About the Author: banglait24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *